চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকদের নিয়মিত উপস্থিতি নিশ্চিতকরণ জরুরি

চাঁদপুর ও পাশ্ববর্তী জেলার চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত বৃহৎ চিকিৎসা কেন্দ্র চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতাল নিয়ে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ রয়েছে রোগীদের মাঝে। কয়েকজন মানব সেবক নিয়মিত রোগীদের সেবা করে গেলেও সিনিয়র ও পুরোনোদের অনেকেই অনিয়মিত।

বিষয়টি নিয়ে সম্প্রতি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক (প্রশাসন) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর পরিদর্শনে এসে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ হাসপাতাল বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহাদাত হোসেন সর্দার।

বিগত দিনে করোনার পাশাপাশি সাধারণ রোগীদের চিকিৎসায় বড় ধরনের ভূমিকা রেখে আসছে এ হাসপাতালটি। তবে সেটি আরও বেশি বেগবনা করা যেত যদি দায়িত্বরত সকল চিকিৎসক নিয়মিত ডিউটি করতেন।

এ ধরনের অভিযোগে গত ১৬ আগস্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক (প্রশাসন) ডা. হাসান শাহরিয়ার কবীর চাঁদপুর সফর করেন। এদিন তিনি আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতাল পরিদর্শন করেন। এই পরিদর্শনে তিনি অফিসিয়ালভাবে চিঠি দিয়ে আসেন।

তারপরও হাসপাতালের ৮৫ জন দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসকদের মধ্যে সেদিন বিভাগীয় পরিচালকের সাথে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মাত্র ২৬ জন । এমন উপস্থিতি দেখে বিভাগীয় পরিচালক চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তিনি এ বিষয়টি স্বাস্থ্য সচিবকে লিখিতভাবে অবহিত করেছেন বলে জানা গেছে।

বিভাগীয় কর্তৃপক্ষের মন্তব্য হলো আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের অধিকাংশ ডাক্তারের পারফরম্যান্স খুবই বাজে অবস্থা। হাতেগোনা ক’জন ডাক্তার তাঁদের পুরোটা উজাড় করে দিয়ে কোনোরকমে এটিকে টিকিয়ে রেখেছেন। এ মন্তব্যটি বিভাগীয় হলেও মূলত এটি চিকিৎসা নিতে আসা রোগী ও স্বজনদের মনের কথা।

আশা করি সিভিল সার্জন ও হাসপাতালের তত্ত্ববধায়ক বিষয়টি গুরুত্বের সাথে তদারকি করবেন এবং সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকগণ চলমান পরিস্থিতিতে নিজেদেরকে সত্যিকারের করোনা যোদ্ধা ও মানব সেবক হিসেবে নিজেদেরকে পরিচয় দিতে কার্পণ্য করবেন না।

কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *