মতলব-গজারিয়া সেতু ও আঞ্চলিক সড়কের উন্নয়ন করা হবে : পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক ড. শামসুল আলম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে আস্থা ও বিশ্বাস রেখে আমাকে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত করেছেন আমি সর্বোচ্চ আন্তরিকতা দিয়ে তার আস্থার প্রতিদান দিতে চাই।
গতকাল বুধবার (২৫ আগস্ট) সকালে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার গালিমখা বাংলা বাজার এলাকায় পথসভায় অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি সারাজীবন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে দুর্নীতিমুক্ত থেকে আমার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করেছি। ভবিষ্যতেও আমি সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে মানুষের সেবায় নিরলসভাবে কাজ করে যেতে চাই।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, মতলব-গজারিয়া সেতু, দাউদকান্দি-মতলব উত্তর আঞ্চলিক সড়ক, বেড়িবাঁধ রক্ষাসহ মতলবের সকল উন্নয়নকান্ড বাস্তবায়ন হবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, উন্নয়ন বলতে যা বুঝায় তা সবই হবে মতলবে। কারন আমি মতলবের সন্তান। দীর্ঘদিন পরিকল্পনা কমিশনে সততার সঙ্গে কাজ করছি। সেই জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমার প্রতি আস্থা রেখে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি যেন প্রধানমন্ত্রীর আস্থার প্রতিদান দিতে পারি, সেই জন্য আপনাদের দোয়া চাই।

পথসভায় বক্তব্য রাখেনস্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কুদ্দুস। এসময় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
পরে প্রতিমন্ত্রী মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে প্রথমে উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সাথে সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পগুলোর চলমান অগ্রগতির পর্যালোচনা, ভবিষ্যৎ উন্নয়ন পরিকল্পনার সম্ভাব্যতা যাচাই ও বিশ্লেষণে প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তা থেকে তথ্য-উপাত্ত নেওয়া ও এলাকার মাঠ অভিজ্ঞতা শোনার জন্য উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভা ও ১৪ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সাথে মতবিনিময় করেন।

এসময় পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম মোহন বলেন, সরকার প্রধান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দূর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো ট্রলারেন্স চালাচ্ছেন। দূর্নীতি দমনে আরো জোরদার হচ্ছে। এটি চলমান রয়েছে। এটি যদি আরো আগে জোরদার হতো তাহলে দেশ আরো অনেক আগে এগিয়ে যেতো। আমরা নিম্ন আয়ের দেশ ছিলাম, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কল্যানে এখন প্রকৃতপক্ষে উন্নয়নশীল দেশে পরিনত হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে যে আস্থা ও বিশ^াস নিয়ে সুযোগ দিয়েছেন। আমার কোনো চাওয়ার পাওয়ার নেই। আমি যেভাবে আছি আলহামদুলিল্লাহ। আমি যেন বাকি জীবনটা সৎভাবে দেশকে সেবা দিয়ে যেতে পারি এইটাই আমার ব্রত। ইউএনও গাজী শরীফুল হাসানের সভাপতিত্বে সভায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (এডিসি)নাসির উদ্দিন সারোয়ার, সহকারী কমিশনার ভুমি আফরোজা হবীব শাপলাসহ উপজেলার সকল কর্মকর্তা ও ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

মতলব উত্তর প্রতিনিধি, ২৬ আগস্ট ২০২১;

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *