স্বাধীনতা যুদ্ধে পুলিশের ভূমিকা অকল্পনীয়

মুহাম্মদ বাদশা ভূঁইয়া মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে পুলিশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান করেছে চাঁদপুর জেলা পুলিশ। গতকাল শনিবার (১৭ ডিসেম্বর) সকালে জেলা পুলিশ লাইনে এ সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সচিব অবসরপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ মমিন উল্লাহ পাটওয়ারী।
তিনি বলেন, আমাদের যে কাজ করার দরকার ছিল আমরা তা করেছি। দেশ স্বাধীন করার জন্য যতটুকু দেওয়ার প্রয়োজন ছিল দেশের জন্য ততটুকুই দিয়েছি। ১৯৫২ সালে এ বাংলাদেশের মানুষ ভাষার জন্য রক্ত দিয়েছে। তখনই আমরা পাকিস্তানিদের বুঝিয়ে দিয়েছিলাম যে আমাদের সাংস্কৃতি ভিন্ন, আমাদের কালচার ভিন্ন, আমাদের ভাষা ভিন্ন তোমাদের সঙ্গে থাকা সম্ভব না। আমরা এক সংস্কৃতি বিশ্বাস করি, এক ভাষায় কথা বলি, এই চেতনাবোধ আমাদের মধ্যে ছিলো। এই যুদ্ধ ছিল পাকিস্তান রাষ্ট্র ও উর্দু ভাষায় বিপক্ষে। প্রতিটি মুক্তিযোদ্ধার জীবনী নিয়ে এক একটি ছবি করা যাবে। বাংলাদেশ পুলিশ স্বাধীনতা যুদ্ধে যে ভূমিকা রেখেছে তা অকল্পনীয়।

তিনি আরো বলেন, যুদ্ধের সময় চাঁদপুরে অনেক পরিবারের ঘর পুড়িয়ে দিয়েছে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর। বৈষম্য, অত্যাচারের শিকারের কারণে মুক্তিযুদ্ধ সংঘটিত হয়েছে। বিশ্বে একমাত্র যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন হয়েছে বাংলাদেশ। দেশ থেকে আমাদের চাওয়া পাওয়ার কিছু ছিল না। জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছি দেশকে স্বাধীন করার জন্য।

প্রধান অতিথি বলেন, আমরা বার বার বুঝিয়ে দিয়েছি যে তোমাদের সাথে আমাদের থাকা সম্ভব নয় তাও ওরা বুঝে না। এরা বলতো বাঙালি কি পারে এরা ছোট ছোট মানুষ, বাচ্চা বাচ্চা মানুষ। তাই ৭১ সালে ১৬ ডিসেম্বর আমরা বাঙালিরা বুঝিয়ে দিয়েছি যে এই বাচ্চা বাচ্চা, ছোট ছোট মানুষের কাছেই সারেন্ডার করতে হয়। এদের কাছেই আত্মসমর্পণ করতে হয়।

তিনি বলেন, আমাদের ছিল বুক ভরা আগুন, সাহস আর বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ। যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন হয়েছে এরকম আর একটিও নেই, আছে একমাত্র বাংলাদেশ। লক্ষ লক্ষ মানুষ বকের তাজা রক্ত দিলো আর দুই লক্ষ মা বোন ইজ্জত দিলো কিসের আাশায়। কিছুই পাওয়ার আশায় নয় শুধু স্বাধীনতা চেয়েছিলাম পেয়েছি। আমরা জীবনের মায়া করিনি যুদ্ধে ঝাপিয়ে পরেছিলাম। বেঁচে আছি এটাইতো বোনাস।

চাঁদপুর পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার) সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ পুলিশের অবসরপ্রাপ্ত ডিআইজি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সফিকুর রহমান, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, চাঁদপুর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ জেলা কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ ওয়াদুদ, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিলন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন এবং অর্থ) সুদীপ্ত রায়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল ইয়াছির আরাফাতের সঞ্চালনায় পুলিশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিচারন ও মুক্তিযুদ্ধের অনুভুতি ব্যাক্ত করেন, অবসরপ্রাপ্ত ক্যাডেট সাব ইন্সপেক্টর শাহআলম বকাউল, শাহরাস্তি থানার অবসরপ্ত এস আই আমির হোসেন, ফরিদগন্জ থানার অবসরপ্রাপ্ত কনস্টেবল জহিরুল হক ভুইয়া, মতলব উত্তর থানার কনস্টেবল মোঃ তোফাজ্জল হোসেন।

অনুষ্ঠান শেষে প্রধান অতিথি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ মমিন উল্লাহ পাটওয়ারীকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ। এবং তাকে ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়। পরে আমন্ত্রিত পুলিশ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে উত্তরীয় ও ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।
.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *