চাঁদপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ আহত ৭

স্টাফ করেসপন্ডেট চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় এক রিক্সা চালক নিহত ও ৬ মোটরসাইকেল আরোহীসহ ৭ জন আহত হয়েছে। নিহতের নাম মোঃ মনির হোসেন। সে উপজেলার টামটা গ্রামের মৃতঃ আঃ মতিনের পুত্র।

শুক্রবার বিকেলে পৌরসভার কাজিরকামতা ও ছিখটিয়া গ্রামে দূর্ঘটনা দুটি ঘটে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৪ টার সময় পৌরসভার কাজিরকামতা আল আমিন হাফেজিয়া মাদরাসার পাশে সাহেব বাজার থেকে ঠাকুর বাজার অভিমুখী একটি রিক্সার সাথে বিপরীত দিক থেকে আসা মোটরসাইকেলের সংঘর্ষ ঘটে। এতে রিক্সা ও মোটরসাইকেল দুমড়ে মুচড়ে গেলে রিক্সা চালক টামটা গ্রামের মৃত আঃ মতিনের পূত্র মোঃ মনির হোসেন (৪৫), মোটরসাইকেল আরোহী ওই গ্রামের আঃ হাইয়ের পুত্র সাব্বির হোসেন (২১), রাজ্জাক মুন্সির পুত্র ফাহিম (২০), ফরহাদ মিয়াজির পুত্র তৈয়ব শাহ (২৬) ও রিক্সার যাত্রী শহীদ পাটোয়ারীর পুত্র রাসেল পাটোয়ারী (৩২) আহত হন।

আহতদের শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখান থেকে আশংকাজনক অবস্থায় রিক্সা চালক মোঃ মনির হোসেন ও মোটরসাইকেল আরোহী তৈয়ব শাহকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ঢাকা নেয়ার পথিমধ্যে কুমিল্লার দাউদকান্দি এলাকায় মনিরের মৃত্যু হয়। এদিকে বিকেল সোয়া ৬ টার দিকে পৌরসভার ছিখটিয়া এলাকায় একটি দ্রুতগামী মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে টামটা উত্তর ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামের মোস্তফার পুত্র কাউসার (২২), একই এলাকার বাবুলের পুত্র আহসান হাবীব (২২) ও মোহাম্মদ হোসেনের পুত্র মেহেরাজ (২১) আহত হয়েছে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

শাহরাস্তি মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আবদুল মান্নান জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। কাজির কামতায় দূর্ঘটনা কবলিত মোটরসাইকেল ও রিক্সা জব্দ করা হয়েছে। এ ব্যাপার আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চাঁদপুরে রিলাক্স বাসের চাপায় নারী ভিক্ষুকের মৃত্যু

চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কে রিলাক্স বাসের চাপায় ঘটনাস্থলেই একজনের মৃত্যু হয়েছে। ১৮ মার্চ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের চাঁদখার বাজার বটতলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।স্থানীয়রা জানায়, এদিন অজ্ঞাত এক নারী ভিক্ষুক সেনগাঁও গ্রাম থেকে ভিক্ষা করে রাস্তা পারাপারের সময় কুমিল্লাগামী দ্রুতগতিতে আসা যাত্রীবাহী রিল্যাক্স (ঢাকা মেট্টো-ব ১৪-১৬৪৫) পরিবহনের একটি বাস ঐ নারীকে আঘাত করে কিছুদূর নিয়ে যায় এবং সড়কের উত্তর পাশে দাঁড় করানো ব্যাটারী চালিত একটি অটো রিক্সাকেও ধাক্কা দিয়ে দুমড়ে মুচড়ে ফেলে।

অটোচালক জাকির গাজী জানান, আমি অটো রিক্সাটি অটো একটি দোকানের সামনে সড়কের পাশে রেখে পানি খেতে যাই। খেয়ে দোকান থেকে বের হওয়ার সময়ই দেখি অজ্ঞাত এই মৃত নারীকে এক্সিডেন্ট করে আমার গাড়িটিকেও ধাক্কা দিয়ে রিলাক্স বাসটি চলে যায়। তখন বাস চালক মিয়ার বাজার এলাকায় বাসটি সাইট করে রেখে পালিয়ে যান।দুর্ঘটনার পাশের স্থানীয় কয়েকজন মহিলা বলেন, এই মহিলা আমাদের বাড়ি থেকে ভিক্ষা নিয়ে আসেন। কিছু খেতে দিতে চাইলে শবে বরাতের রোজা আছেন বলেন জানান নিহত এই ব্যক্তি। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত নিহতের পরিচয় জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আমরা ওনাকে সবসময় বিভিন্ন বাড়ি কিংবা দোকানে দোকানে ভিক্ষা করতো। মুখ চেনা চেনা লাগে কিন্তু পরিচয় জানি না। তবে পাইকাস্তা কিংবা মুন্সিরহাট এলাকায় হতে পারে নিহত এই বৃদ্ধার বাড়ি। খবর পেয়ে চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রাখেন এবং রিলাক্স বাস ও ক্ষতিগ্রস্ত অটো রিক্সাটিকে জব্দ করে থানায় নিয়ে যান। সেই সাথে অজ্ঞাত এই নারীর মৃতদেহও থানায় নিয়ে যান।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার এসআই শাহরিন জানান, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করি এবং বাসসহ অটোরিক্সাকেও জব্দ করি। নিহতের পরিচয় পাওয়া গেলে ও মামলা করা হলে তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.