হাইমচরে আসামি ছিনতাই এর ঘটনায় আটক ১২

হাইমচর প্রতিনিধিচাঁদপুরের হাইমচরে পুলিশের গাড়ী পোড়া মামলার আসামী যুবদল নেতা ফারুক মাঝিকে পুলিশের হ্যান্ডকাফ সহ ছিনিয়ে নেয়া এবং সরকারি কাজে বাধা প্রদান মামলায় ৬ জন, সন্দেহজনক ৬জনকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরণ করেছে হাইমচর থানা পুলিশ জানিয়েছেন অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাহবুবুর রহমান মোল্লা। তিনি জানান বৃহস্পতিবার বিকেলে পুলিশের উপর হামলা, আসামী ছিনিয়ে নেয়া ঘটনায় রাতভর অভিযান চালিয়ে পলাতক ফারুক মাঝি, মান্নান আখন, শপিক আখন সহ ১২ জন আটক করা হয়েছে। পুলিশের উপর হামলা, আসামী ছিনতাই, সরকারি কাজে বাধা প্রদান করায় এজাহারকৃত মামলায় (মামলা নং – ২, তারিখ ৩/৩/২২) ৬জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। অভিযানে আটক আরো ৬ জনকে সন্দেহ জনক হিসেবে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে, তাদের বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। গ্রেফতারকৃত ৬ জন হচ্ছেন উপজেলা যুবদল সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আবদুল মান্নান (৪০), বিএনপি নেতা শপিক আখন (৫৫), যুবদল নেতা ফারুক মাঝি, উল্লেখিত ৩ জন ২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন পুলিশের গাড়ি বহরে হামলা, পেট্রোল দিয়ে পুলিশের গাড়ি পোড়ানো মামলার আসামি। অপর দুজন হচ্ছেন সিএনজি চালক গিয়াসউদ্দিন ও মিজান খান। সন্দেহ জনক ৬ জনের নাম দেয় নি পুলিশ। স্থানীয় সুত্র জানায় ৩ মার্চ বৃহস্পতিবার বিকেলে হাইমচর উপজেলার আলগী উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় সালিশ বৈঠকে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি ফারুক মাঝি কে আটক করে পুলিশ। এসময় উপস্থিত যুবদল নেতা মান্নান আখন, শপিক আখনের নেতৃত্বে বিএনপি যুবদল নেতৃবৃন্দ পুলিশের উপর হামলা করে ফারুক মাঝি কে ছিনিয়ে নেয়। এ ঘটনায় তোলপাড় হয় পুলিশ প্রশাসনে। ঘটনাস্থল হতে সালিশ বৈঠকে আহবায়ক বিএনপি নেতা নাজমুল আখন, সিএনজি চালক গিয়াসউদ্দিন, মিজান খান কে আটক করে পুলিশ। রাতে পুলিশের ব্যাপক অভিযান ও (মোবাইল ট্র্যাকিং প্রযুক্তির মাধ্যমে) কমলাপুর গ্রামে উপজেলা বিএনপি সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম শপিক এর বাড়িতে পুলিশ গেরাও দিয়ে ছিনতাই হওয়া আসামি ফারক মাঝি, ছিনতাই কারী মান্নান আখন, শপিক আখন কে আটক করে। জানাযায় বৃহস্পতিবার বিকেলে হাইমচর থানা পুলিশ এর নিয়মিত অভিযানে উপজেলার আলগী উত্তর ইউনিয়ন এর ৫ নং ওয়ার্ডে অভিযান কালে স্থানীয় একটি সালিসি বৈঠক হতে (২০১৮ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচন এর দিন পুলিশের গাড়ি বহরে হামলা এবং গাড়ী পুড়িয়ে দেয়া মামলার আসামি) উপজেলা যুবদল নেতা ফারুক মাঝি কে আটক করে, হ্যান্ডকাফ লাগানো অবস্থায় ফারুক সমর্থকরা পুলিশের হাত থেকে ছিনিয়ে নিলে ফারুক হ্যান্ডকাফসহ পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে নাজমুল সহ ৫/৬ জনকে কে আটক করে হাইমচর থানা পুলিশ।
পুলিশের হাতে আটক হ্যান্ডকাফ পরা আসামীকে জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয়া, এবং পরবর্তীতে আসামীর খোঁজে যাওয়া স্থানীয় গ্রাম পুলিশ উত্তম সরকার কে মারদোর করে আসামি ও ছিনতাই কারীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.