হাইমচরে গৃহবধূর আত্মহত্যা, পরিবারের দাবি হত্যা

হাইমচরে পারিবারিক কলহের জের ধরে ইদুর মারার ঔষধ (বিষ)পানে সুরভী আক্তার(২৫) নামে গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন। মৃত গৃহবধূর পরিবারের দাবী মেয়েকে হত্যা করেছেন শশুর বাড়ীর লোকজন। মৃত সুরভী আক্তার ৪নং নীলকমল ইউনিয়নের সরদারকান্দী এলাকার হযরত আলীর স্ত্রী। শনিবার ২২ জানুয়ারী সকালে সরদারকান্দী গ্রামে তাঁর স্বামীর বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে।

পারিবারিক সুত্রে জানাজায়, গত ৬ বছর পূর্বে একই এলাকার আবদুর রহমান বেপারীর ছেলে, হযরত আলী(২৭) এর সাথে পার্শ্ববর্তী এলাকার আঃ হাসেম হাওলাদারের মেয়ে সুরভীর সাথে বিবাহ হয়। বিবাহ হওয়ার পর থেকে শশুর আঃ রহমান বেপারী ও শাশুড়ী স্নেহেরা বেগমের সাথে বাকবিতন্ড লেগেই থাকতো। সর্বশেষ শনিবার সকালে ফসলের মাঠে ছাগল যাওয়া কে কেন্দ্র করে, শশুর আব্দুর রহমান তার পুত্র বধু সুরভীকে গাল মন্দ করে। সুরভী তার স্বামী হযরত আলীকে বিষয়টি জানান। হযরত আলী তার পিতাকে কিছু না বলে স্ত্রীকে উল্টো ব্যাপক ভাবে মারধোর করে। স্বামীর সাথে অভিমান করে সুরভী বিষপান করে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করে।

পরিবারের লোকজন তাকে হাইমচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাইমচর থানা অফিসার ইনচার্জ মো. মাহবুবুর রহমান মোল্লাহ জানান, স্বামীর সাথে ঝগড়া করে গৃহবধু বিষ পান করে আত্মহত্যা করেছে। ময়না তদন্তের জন্য লাস পাঠানো হয়েছে। এ মৃত্যুর পেছনে যদি কোন রহস্য থাকে ময়না তদন্ত রিপোর্টে তা উঠে আসবে।

মোঃ জাহাঙ্গীর আলম

Leave a Reply

Your email address will not be published.