হাইমচরে চর দখল নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১৫

স্টাফ রিপোটার: চাঁদপুর হাইমচর উপজেলার ঈশানবালা বোরোচর বন্দোবস্ত নেওয়া সরকারি খাস জমির ভোগ দখল নিয়ে স্থানীয় দুটি গ্রুপের মধ্যে হামলা ও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে।তাদের মধ্যে গুরুতর আহত ১১জন চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি এবং প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে। ৩ এপ্রিল সোমবার বেলা পৌণে বারোটার সময় হাইমচর নীলকমল ইউনিয়নের ঈশানবালা ব্যালেন্স শীট চরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
আহতরা হলেন উত্তর ঈশানবালার আবুল মাতাব্বর(৬৮), আবুল কালাম (৩০), আলামিন মাতাব্বর (৩৯), আলামিন ভূঁঞা (৩২), নুরুল ইসলাম (৪৯),ইসমাইল ভূঁঞা (৩৫)।এরা সবাই একই পরিবার ও আত্মীয় স্বজন।অপর গ্রুপের আহতরা হলেন-মোল্লাকান্দির বিল্লাল মইশাল (৬০) ও তার ছেলে হৃদয় (২২), জামাল মাঝি(৩৮), সাহেব আলী (৩৩) ও ছিডু মইশাল(৩৫)। এরা একটি পক্ষ।রোববার বিকেলে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতাল জরুরী বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।হাসপাতাল ডিউটি ডাক্তার মিজানুর রহমান জানান, আহতদের অধিকাংশের মাথায়, হাতে ধারালো অস্রের জখমের আঘাত রয়েছে।যারা হাসপাতালে এসেছে প্রত্যেককেই চিকিৎসা এবং ভর্তি দেওয়া হয়েছে।নীলকমল ইউনিয়ন ১নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আসাদুজ্জামান স্বপন জানান, দুই পক্ষের মারামারির খবর পেয়ে আহতদের দেখতে হাসপাতালে গিয়েছি।তিনি বলেন, ব্যালেন্স শীট চরের কিছু জমি সরকার থেকে লিজ প্রাপ্তরা একটি পক্ষকে এক বছরের চুক্তিতে বোরো আবাদ এবং মৎস্য আহরন করতে দেয়।অপরপক্ষ সেই জমি তাদের দাবি করে ভোগ দখল করতে চেষ্টা করছে।এ নিয়ে বিরোধে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে।
আহত ইসমাইল ভূঁইয়া জানান,কোন কিছু বুঝার উপায় ছিল না। প্রতিপক্ষরা তিন থানার লোক একত্রিত করে জাল নিয়ে গেছে জায়গা দখল করতে। এ সময় তারা আমাদের উপর দা ছেনি লাঠিসোটা নিয়ে অর্তকিত হামলা চালায়।অপরদিকে, বিল্লাল মইশাল জানান, ভূমিহীন হিসাবে ওই জায়গার কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও প্রতিপক্ষরা ওই জায়গায় বোরো আবাদ এবং জাল পেতে মাছ ধরছে।এদিকে, স্থানীয় সূত্রে জানা যায় এদিন বোরো ধান কাটা এবং নদীর পাড়ে গছিজাল পাতা নিয়ে স্থানীয় বিল্লাল মইশাল গ্রুপ ও কালু ভুঁঞার ছেলেদের সাথে এই মারামারির ঘটনা ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.