হাজীগঞ্জে সরিষার ব্যাপক আবাদ

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে এবার ভোজ্যতেলের ঘাটতি পূরণের লক্ষ্যে প্রায় ৫০০ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এতে ফসল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৫০ টন।
জানা গেছে, এবার মাঠে মাঠে বিস্তর এলাকা জুড়ে সরিষার ব্যাপক আবাদ হয়েছে। হলুদ ফুলে ভরে আছে জমিগুলো। পুরো এলাকায় ফুলের মৌ মৌ গন্ধ সুবাস ছড়াচ্ছে। আকৃষ্ট করছে মৌমাছিসহ সকল প্রকৃতিপ্রেমিকদের। এখন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে, ফলন ভালো হবে বলে আশা করছেন কৃষকেরা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, হাজীগঞ্জ উপজেলার বিশেষ করে উত্তর অঞ্চলের কৃষি মাঠে সরিষা ফুলে ভরে গেছে ফসলের মাঠ। চারদিকে তাকালে যেন সবুজের ফাঁকে হলুদের সমারোহ। কখনো কখনো সরিষার খেতে বসছে পোকা খাদক বুলবুলি ও শালিকের ঝাঁক। সরিষার ফুলের সৌন্দর্যকে ধরে রাখার জন্য অনেক তরুণ-তরুণীরা নিজেদের ক্যামেরা ও ভিডিও মাধ্যমে নিজের ছবির সঙ্গে সরিষার ফুলের ছবি তুলছেন।
উপজেলার বলিয়া গ্রামের কৃষক জসিম উদ্দিন বলেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে তেল জাতীয় ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে আমার প্রায় ৬০ হেক্টর জমিতে সরিষার ফলন করেছি। আমার মতো আরও অনেক কৃষক সরিষার ফলন করেছেন।
পাতানিশ গ্রামের কৃষক ফজলুল হক, চাঁন মিয়া, কবির মিজিও প্রায় শতাধিক হেক্টর জমিতে সরিষার ফলন করেছেন। এবারের শীত মৌসুমে ভালো ফুল ফুটেছে বলে ভালো ফলন হবে বলে আশা করা হচ্ছে। সরিষার ফুলে ফুলে হলুদ বর্ণিল জমিগুলোতে আশপাশে ও দূরদূরান্ত থেকে প্রকৃতিপ্রেমিকেরা বেড়াতে আসছেন, ছবি তুলছেন।
হাজীগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কৃষিবিদ আজাদ হোসেন বলেন, এ বছর প্রায় ৫০০ হেক্টর জমিতে সরিষা আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ফসল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৫০ টন। সেই সঙ্গে আমাদের প্রায় ৭০/৭৫টি সরিষার প্রদর্শনী রয়েছে।
হাজীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দিলরুবা খানম বলেন, উপজেলার উঁচু জমির পাশাপাশি পলি অঞ্চলে বন্যার পর মাটির উর্বরতা শক্তি বৃদ্ধি পাওয়ায় এ বছর ব্যাপক হারে সরিষার উৎপাদন সম্ভব। সরিষা কৃষকের স্বপ্ন পূরণের পাশাপাশি ভোজ্য তেলের ঘাটতি পূরণেও বিশেষ ভূমিকা রাখবে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ও রোগবালাই না ধরলে সরিষা আবাদে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে আশা করছি।
কৃষি কর্মকর্তা আরও বলেন, সরকারের সরিষা প্রণোদনা থাকায় এবার তা আবাদে কৃষকের অনেকটাই আগ্রহ বেড়েছে। সেই সঙ্গে আমরা একাধিক প্রদর্শনী করেছি। সরিষার আবাদ ওঠার পর কিছু জমিতে বিলম্বে ধান রোপণের সম্ভাবনা রয়েছে।

হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি

Leave a Reply

Your email address will not be published.