এশিয়াবিদ্বেষী মনোভাব থামানোর দাবি নিয়ে হোয়াইট হাউসে বিটিএস

বিটিএস এখন বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্যান্ডগুলোর একটি। বাংলাদেশেও দক্ষিণ কোরীয় এই ব্যান্ডটির ভক্ত-শ্রোতার অভাব নেই। গান ছাড়া বিভিন্ন সামাজিক ও দাতব্য কার্যক্রমে নিয়মিত অংশ নেয় গ্র্যামিজয়ী ব্যান্ড দলটি।
এবার বিটিএস সোচ্চার হয়েছে এশীয়দের প্রতি ঘৃণা ও বিদ্বেষমূলক আচরণের বিরুদ্ধে। এ জন্য কথা বলতে ৩১ মে তারা হাজির হয়েছিল মার্কিন প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ও বাসভবন হোয়াইট হাউসে। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে যুক্তরাষ্ট্রে এশিয়ান-আমেরিকানদের প্রতি ঘৃণা ও বিদ্বেষমূলক আচরণ বড় সমস্যা হয়ে উঠেছে। এটা থামাতে তহবিল গঠন করতে চায় বিটিএস। বিষয়টি নিয়ে বিটিএস কথা বলেছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে। খবর রয়টার্সের।

হোয়াইট হাউসে প্রবেশের আগে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন কোরীয় পপ তারকারা। সেখানে তাঁরা এশিয়ান–আমেরিকানদের লক্ষ্য করে বিদ্বেষমূলক আচরণ বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছেন। এ ধরনের আচরণকে ‘অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড’ বলে আখ্যা দেন ব্যান্ডটির সদস্য জিমিন। দোভাষীর মাধ্যমে তিনি বলেন, ‘এটা করতে আমাদের সবার ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’

 এশিয়াবিদ্বেষী-মনোভাব-থামানোর-দাবি-নিয়ে-হোয়াইট-হাউসে-বিটিএস

এর আগে বিভিন্ন সময় কোভিড-১৯–এর জন্য চীনকে দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্রের কিছু রাজনীতিবিদ ও বুদ্ধিজীবীর দেওয়া বক্তব্য এশিয়াবিদ্বেষী ঘৃণাকে আরও উসকে দিয়েছে। তবে আশার কথা, এই বিদ্বেষমূলক আচরণ বন্ধে যে প্রতিবাদ তৈরি হয়েছে, তাতে এশীয়-আমেরিকানদের সঙ্গে এগিয়ে এসেছেন হাওয়াই ও প্যাসিফিক আইল্যান্ডের সাধারণ মানুষও। এবার প্রতিবাদে সরব হলো বিটিএস।
ব্যান্ড দলটির সঙ্গে আলোচনা প্রসঙ্গে হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জানান, বিটিএসের সঙ্গে একটি গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়েছে তাদের। ব্যান্ডটি বিশ্বজুড়ে আশা ও ইতিবাচকতার বার্তা ছড়িয়ে দিতে চায়।

বিটিএসের ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকা বিগ হিট মিউজিক বলছে, হোয়াইট হাউসে আমন্ত্রণ পেয়ে তারা সম্মানিত।

২০১৩ সালে সাত সদস্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে বিটিএস। এরপর থেকেই তরুণদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে তাদের গানের কথা এবং সামাজিক মাধ্যমে পরিচিতি পায়। শুধু গান নয়, অসাধারণ নাচ ও নিজস্ব স্টাইলের জন্যও তাদের সুনাম রয়েছে।

২০২০ সালের জুনে বিটিএস–ভক্তরা যুক্তরাষ্ট্রের সামাজিক ন্যায়বিচারের জন্য ‘হ্যাশট্যাগ ম্যাচ মিলিয়ন’ নামে একটি অনলাইন ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে এক দিনে প্রায় ১০ লাখ ডলার সংগ্রহ করে; যা ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলনে অনুদান হিসেবে দেয়।
গত ফেব্রুয়ারিতে টানা দ্বিতীয়বারের মতো আইএফপিআই গ্লোবাল রেকর্ডিং আর্টিস্ট অব দ্য ইয়ারের মুকুট জিতেছিল বিটিএস।
১০ জুন বিটিএস প্রকাশ করবে নতুন গানের অ্যালবাম ‘প্রুফ’। নতুন ও পুরোনো গানের সমন্বয়ে তাদের এই অ্যালবামটি সাজানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *